Connect with us

চার যুগে খ্যাতিমান মিউজিসিয়ান ফোয়াদ নাসের

ফোয়াদ নাসের, ফিডব্যাক, সুমনা হক, ফোয়াদ নাসের বাবু, সৈয়দ আব্দুল হাদী, সাবিনা ইয়াসমিন, রফিকুল আলম, আবিদা সুলতানা, ফাহমিদা নবী, সামিনা চৌধুরী, নিলয় দাস, কাজী মোর্শেদ

Leisure

চার যুগে খ্যাতিমান মিউজিসিয়ান ফোয়াদ নাসের

ফোয়াদ নাসের, বাংলাদেশের সঙ্গীতাঙ্গনের একজন কিংবদন্তী মিউজিসিয়ান। একজন মিউজিসিয়ান হিসেবে তিনি যেমন সুনাম কুঁড়িয়েছেন ঠিক তেমনি একজন সঙ্গীত পরিচালক হিসেবেও ফোয়াদ নাসের বেশ সুনাম কুঁড়িয়েছেন। অনেক কিংবদন্তী সঙ্গীতশিল্পীদের জন্য গান করার পাশাপাশি তিনটি সিনেমা’র সঙ্গীত পরিচালনাও করেছেন তিনি। দেশ স্বাধীনের পরপর আজম খান, ফেরদৌস ওয়াহিদ, ফকির আলমগীর’সহ আরো বেশ ক’জনের হাত ধরে বাংলাদেশে পপ মিউজিকের যাত্রা শুরু হয়। ফোয়াদ নাসের বাবু আজম খানের সঙ্গে ১৯৭৪ সালে একজন বেজ গীটার বাদক হিসেবে নিয়মিত কাজ করা শুরু করেন। সেই হিসেবে একজন মিউজিসিয়ান এবং সঙ্গীত পরিচালক হিসেবে প্রায় চার যুগ ধরে অনেকটাই নীরবে নির্ভৃতে কাজ করে যাচ্ছেন তিনি।

১৯৭৭ সালে দেশের ঐতিহ্যবাহী ব্যা-দল ‘ফিডব্যাক’র সূচনা তার হাত ধরেই। এই দলের হয়ে একজন কী-বোর্ডিস্ট হিসেবে যাত্রা শুরু তার। এই দলের এ যাবতকালের সবচেয়ে জনপ্রিয় গান ‘মেলায় যায়রে’ গানটি মাকসুদের লেখা ও সুর করা, সঙ্গীতায়োজন ফোয়াদ নাসেরের। বিগত চার দশক ধরে তিনি আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন সঙ্গীতশিল্পী রুনা লায়লা’র সঙ্গে একজন বেজ গীটারিস্ট হিসেবে দেশ বিদেশে স্টেজ শো’গুলোতে অংশগ্রহন করছেন। প্রয়াত বরেণ্য সুর স্রষ্টা আলাউদ্দিন আলী’র সঙ্গেও সিনেমার গানের সহকারী হিসেবে কাজ করেন চার দশক।

১৯৮৯ সালে কাজী মোর্শেদ পরিচালিত ‘ছলনা’, ১৯৯০ সালে বেলাল আহমেদ পরিচালিত ‘ঘর আমার ঘর’, ১৯৯৬ সালে উজ্জ্বল পরিচালিত ‘পাপের শাস্তি’ এবং সর্বশেষ আবু সাইয়ীদের ‘অপেক্ষা’ সিনেমার সঙ্গীত পরিচালক হিসেবেও কাজ করেন ফোয়াদ নাসের। সৈয়দ আব্দুল হাদী, সাবিনা ইয়াসমিন, রফিকুল আলম, আবিদা সুলতানা, অ্যান্ড্্রু কিশোর, ফাহমিদা নবী, সামিনা চৌধুরী’সহ আরো অনেক সঙ্গীতশিল্পী তার সুরে গান গেয়েছেন। এই প্রজন্মেরও বেশ কয়েকজন শিল্পী তার সুরে গান গেয়েছেন। বাংলাদেশের বরেণ্য সঙ্গীতজ্ঞ ও সঙ্গীত গবেষক সুধীন দাসের ছেলে নিলয় দাসের প্রথম গানের অ্যালবাম ‘কতো যে খুঁজেছি তোমায়’ ফোয়াদ নাসের বাবুর সুর সঙ্গীতে করা। অ্যালবামটি ১৯৮৮ সালে প্রকাশিত হয়েছিলো। এই অ্যালবাম দিয়ে শ্রোতা দর্শকের মন জয় করে নিয়েছিলেন নিলয় দাস। পরবর্তীতে ফোয়াদ নাসের বাবু সুমনা হকের জন্য ‘মায়াবী এ রাতে’ অ্যালবামটির সুর সঙ্গীত করেছিলেন। এই অ্যালবামের ‘মায়াবী এ রাতে’ গানটি দারুণ জনপ্রিয়তা পায়। শ্রোতারা এখনো সুমনা হকের এই গানটি শুনে থাকেন। গানটি লিখেছেন খালেদা এদিব চৌধুরী ও আহমেদ ইউসুফ সাবের, সুর সঙ্গীত করেছেন ফোয়াদ নাসের বাবু।

১৯৭৭ সাল থেকে এখন পর্যন্ত ফিডব্যাক’র সঙ্গেই আছেন। নিজের ব্যা- দলেরই জন্য দু’একটি গানেও কন্ঠ দিয়েছিলেন বলে জানান তিনি। ১৯৬০ সালের ৩১ মে জন্ম নেয়া কুষ্টিয়ার সন্তান ফোয়াদ নাসের আজ বালাই ষাট পেরিয়ে ৬১ পূর্ণ করে ৬২’তে পা রাখতে যাচ্ছেন। ফোয়দ নাসের বলেন,‘ মানুষ আমাকে ভালো জানে, মানুষ আমাকে ভালোবাসে, এক জীবনে এটাই অনেক বড় প্রাপ্তি। মাঝে অসুস্থ হয়ে গিয়েছিলাম। আল্লাহ’র অশেষ রহমতে এখন বেশ ভালো আছি। আজ আমার জন্মদিন। সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন যেন পরিবারের সবাইকে নিয়ে ভালো থাকতে পারি।’

Recommended for you:
Continue Reading
Advertisement
You may also like...

Contents published under this byline are those created by the news team of WeeklyBlitz

Click to comment

Leave a Comment

More in Leisure

Popular Posts

Subscribe via Email

Enter your email address to subscribe and receive notifications of new posts by email.

Top Trends

Facebook

More…

Latest

To Top
%d bloggers like this: